ওয়েব ডেভেলপমেন্টক্যারিয়ার কথনব্লগ

ও‌য়েব ডেভেলপমেন্টের ভ‌বিষ্যৎ চা‌হিদা ও ক্যারিয়ার

সাধারণত প্রতিদিনের প্রযুক্তি আমাদেরকে তার ওপর নির্ভরশীল করে রেখেছে। যেমন ধরুন- যেকোন অতি সাধারণ মোবাইল থেকে শুরু করে অতিথিশালা যন্ত্রপাতি সবকিছু মিলিয়ে প্রযুক্তি যেন আমাদেরকে আচ্ছন্ন করে ফেলেছে। আর আপনারা হয়তো এই জিনিসটা জানেন না অনেকেই আমরা মোবাইল বা ব্রাউজার দিয়ে সফটওয়্যার বা সাইটে ব্রাউজ করি সেগুলো কিন্তু সবই তৈরি ওয়েব ডেভেলপারদের দিয়ে।আর সাধারনত এই ওয়েব ডেভলপার বা ওয়েব ডিজাইনাররাই নিত্য নতুন ওয়েবসাইট তৈরী করে আমাদের জীবনকে দিন দিন করে তুলছে আরো বৈচিত্র্যময়। তবে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এবং ডিজাইন একই জিনিস নয়। একে অপরের পরিপূরক। পরবর্তীতে আমরা অন্য একদিন ওয়ের ডিজাইন সর্ম্পকে বলবো । আজকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সর্ম্পকে বলা যাক।

সাধারণত আপনি যখন ওয়েব ডেভেলপমেন্টের কাজ শিখবেন তখন আপনাকে একটা কথা মাথায় রাখতে হবে যে আপনি একটি বিরাট বড় প্রতিযোগিতায় নামতে চলেছে এবং এই প্রতিযোগিতায় আপনার প্রতিযোগী হবে সাধারণত সারা পৃথিবীর আরো অনেক মানুষ। সাধারণত আপনি যখন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে যাবেন তখন আপনি আউটসোর্সিং এর জন্য অনেক ধরনের কাজ পাবেন কিন্তু সবচেয়ে বেশি যে কাজটা আপনি সেখানে পাবেন সেটি হচ্ছে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সংক্রান্ত কাজ। তবে আপনি যখন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে যাবেন তার আগে অবশ্যই আপনাকে যে কোন একটি বিষয় নিয়ে কাজটা ভালোভাবে শিখিয়ে নিতে হবে তারপর সেখানে আপনাকে যেতে হবে কাজের জন্য। এছাড়াও বর্তমানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও এর চাহিদা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং আমাদের দেশের তুলনায় বাহিরে দেশে এর চাহিদা দ্বিগুনেরও বেশি হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে যত দিন যাচ্ছে মানুষ ততই প্রযুক্তি নির্ভর হচ্ছে। প্রথম দিকে হয়তো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এর তুলনায় কম পারিশ্রমিকের কাজ করতে হতে পারে তবে লং টার্ম কাজ করতে করতে পারিশ্রমিক বাড়তে থাকবে ।



ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি

সাধারণত ওয়েব ডেভেলপমেন্ট হলো একটা ওয়েবসাইটের সাইটের প্রাণ সঞ্চার করা। আর সহজ কথায় বলতে গেলে web-development হচ্ছে একটি ওয়েবসাইটের জন্য সাধারণত অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করা। যেখানে সাধারণত একজন ওয়েব ডেভেলপার একটি ওয়েবসাইটের জন্য এপ্লিকেশন তৈরি করে থাকেন। আর একজন ওয়েব ডিজাইনার যে ডিজাইন করে থাকুন না কেন তার প্রতিটা উপকরণকে সাধারণত ফাংশনাল করার জন্য পরিচালিত কর্মকাণ্ডই হল ওয়েব ডেভেলপমেন্ট। 

সাধারণত একটি ওয়েবসাইটকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়।যেমনঃ

(১)টেমপ্লেট বা ডিজাইন 

(২)কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম 

(৩)ডাটাবেজ 

সাধারণত একজন ভালো ওয়েব ডিজাইনার এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয় রেখে পুরো সিস্টেম কে সংক্রিয় করে থাকেন। আর একজন ওয়েব ডেভেলপারের কাজ হচ্ছে ডাটা প্রসেসিং, ডাটাবেজ নিয়ন্ত্রণ, সিকিউরিটি নির্মাণ, এডমিন এবং ইউজারের ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ করা, অ্যাপ্লিকেশন এর সকল সিস্টেমকে ফাংশনাল করা এবং সমস্ত সিস্টেম এর কার্যকারিতা এবং ব্যবহারযোগ্যতা নিয়ন্ত্রণ করা।

সাধারণত ওয়েব ডেভেলপমেন্টের কাজ শিখতে যা যা লাগে সেগুলো হচ্ছে-এইচটিএমএল সিএসএস, জাভাস্ক্রিপ্ট, jquery,Php,পাশাপাশি যেকোনো একটি সিএমসি (content management system) যেমন,ওয়ার্ডপ্রেস জুমলা বা ড্রপাল শিখে রাখা ভালো। এছাড়া বাকিগুলো আপনি ধীরে ধীরে কাজ করতে করতে জানতে পারবেন। সাধারণত আপনি যে প্রতিষ্ঠানে কাজ করবেন তারাই আপনাকে বলে দিবে কোনটা কোনটা শিখতে হবে । তবে উপরোক্ত বিষয় গুলো হচ্ছে কোর বিষয় যা আপনাকে প্রাথমিক অবস্থায় জানতে হবে। 

 

ওয়েব ডেভেলপমেন্টের কাজ শিখতে যা যা লাগবে

  • সাধারণত প্রথমে আপনাকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি এবং ডিজাইন কি এই সম্পর্কে ভাল করে জানতে হবে এবং ধারণা রাখতে হবে।অর্থাৎ এক কথায় আপনাকে ব্যাপারটা ভালোভাবে বুঝতে হবে। 
  • সাধারণত মার্কেটপ্লেসগুলোতে এই কাজ করে  আপনাকে সফল হতে হলে অনেক ধৈর্য শক্তি থাকতে হবে এবং রিসার্চ করার মানসিকতা থাকতে হবে। ।অনেকে আছেন যারা অনেক ভালো কাজ পারেন কিন্তু তাদের ধৈর্য শক্তি কম তারা অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে ব্যর্থ হয়েছেন। তাই অবশ্যই ধৈর্য ধরে কাজ করতে হবে।কোন কিছূ না বুঝতে পারলে সেটা রিসার্চ করার করার মানসিকতা তৈরি করতে হবে।
  • আপনার সৃজনশীল চিন্তা করার যোগ্যতা থাকতে হবে। তার জন্য  আপনাকে প্রচুর পরিমাণে চর্চা করতে হবে। প্রায়  সবক্ষেত্রে  অবশ্যই এক্ষেত্রে বায়ার বা যে প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে চাইবেন তারা আপনার আগের কাজ দেখতে চাইবে। ফলে আপনি যে কাজ গুলো চর্চা করবেন সেগুলোকে তাদের কে দেখাতে পারবেন। এছাড়াও আপনি যখন মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজ করতে থাকবেন আস্তে আস্তে আপনার এই বিষয়গুলো নিয়ে সৃজনশীল চিন্তা  তৈরি হয়ে যাবে।
  • আপনাকে ইংরেজি জানতে হবে তবে এটা মোটামুটি জানলেও চলবে কেননা আপনি যখন বায়ারের সাথে ডিল করবেন তখন এটি আপনাকে সাহায্য করবো। তাদের ভাষা বুঝতে আপনার পক্ষে অনেক সহজ হবে। 
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজের জন্য আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমানে সময় দিতে হবে। আপনি যদি এখানে সময় দিতে না পারেন তাহলে আপনি কোনদিনও এই কাজ ভালোভাবে করতে পারবেন না বা আপনি সফল হতে পারবেন না। আর সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে মাইন্ড সেট করা । আপনাকে এমনভাবে মাইন্ড সেট করতে হবে যে, আপনি প্রতিদিন নিদির্ষ্ট পরিমাণ সময় এখনে দিতে পারেন। আপনাকে প্রতিদিনের লক্ষ্যমাত্রা রাখতে হবে আপনি যেন মিনিমাম ৪-৫ ঘন্টা সময় ব্যয় করতে পারেন । কথায় আছে কষ্ট করলে কেষ্ট মিলে। তাই, সময় দিয়ে শিখুন। 
  • আপনাকে প্রচুর পরিমাণে পরিশ্রম করতে হবে এখানে। আর ধৈর্যের সাথে কাজ করতে হবে। প্রথম দিকে হয়তো কাজ পেতে ‍কিছৃট বেগ পেতে হতে পারে তখন হতাশ না হয়ে বরং ধৈয্য ধরে আপনার স্কিলগুলোকে ঝালাই করে নিতে হবে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্টের কাজ কোথায় পাবেন ?

সাধারণত আপনি যদি ওয়েব ডেভেলপমেন্টের কাজ ভালোভাবে শিখতে পারেন তাহলে আপনার কাজের জায়গার অভাব হবেনা। আপনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি অনলাইনে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে অনেক কাজ পেয়ে যাবেন। অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলোর মধ্যে প্রধান হচ্ছেঃ

  • odesk.com
  • Freelauncer.com
  • peopleperhour.com
  • fiverr.com
  • upwork.com
  • toptal.com
  • flexjobs.com
  • skyword.com
  • hireable.com
  • Guru.com ইত্যাদি 
  • তাছাড়া আপনি যদি ভাল ওয়েব পেজ ডিজাইন করতে পারেন তাহলে আপনার এই কাজেরও যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে। আপনি themeforest.net আপনার কাজটি বিক্রি করে 99design.com কনটেস্ট এ যোগদান করার মাধ্যমেও আয় করতে পারেন  


ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর ভবিষ্যৎ চাহিদা 

সাধারণত যতদিন ওয়েবসাইট থাকবে ততদিন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর চাহিদাও থাকবে। দিনদিন ওয়েবসাইটের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। যেমন ধরুন, ২০১৫ হিসাব মতে বিশ্বে মোট ওয়েবসাইট ছিল তখন ৮৬ কোটি তারপরে ২০১৭ সাল নাগাদ এর সংখ্যা বেড়েছে ১১৫ কোটিরও বেশি। দুই বছরের এর পরিমাণ বেড়েছে ৪৩ কোটিরও বেশি। আর বুঝতে বাকি নেই যে বর্তমান বিশ্বে ওয়েব সাইট ডেভলপার বা ওয়েবসাইট ডিজাইনার মূল্য বা চাহিদা কতটা। 

যেকোনো মার্কেটপ্লেসে একজন ওয়েব ডেভেলপার তার কাজের ধারা অনুযায়ী ঘন্টায় ২০  ডলার  থেকে একশ ডলার পর্যন্ত ইনকাম করে থাকে। বাংলাদেশে এমন অনেক ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন যারা সাধারণত কাজের ধারণা দিয়ে ঘণ্টায় একশ ডলার পর্যন্ত আয় করে থাকে।

 সাধারণত ফ্রিল্যান্সিংয়ে  সর্বোচ্চ কাজ বা আয়ের দিক থেকে বিবেচনা করে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বা ওয়েব ডিজাইনের কাজ সব থেকে বেশি। 

পরিশেষে,

শুধু আপনাকে কাজ শিখে দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা বাড়াতে হবে তাহলে আপনার কাজের মূল্য বাড়বে আপনার ভবিষ্যতের জন্য ভালো ভিত্তি তৈরি হবে এর মাধ্যমে। আর এর জন্য আপনাকে শুধু একটু পরিশ্রম অধ্যবসায় এবং ধৈর্য্যসহকারে কাজ করে যেতে হবে প্রতিনিয়ত।তাহলে সাধারণত আপনি এই অনলাইনে মার্কেটপ্লেসগুলোতে সফল হতে পারবেন বা আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফল ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবেন।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button