Tech Learnক্যারিয়ার কথনডিজিটাল মার্কেটিং

ইমেইল মার্কেটিং কি , কেন করবেন এবং এর প্রয়োজনীয়তা

ইমেইল মার্কেটিং কি ও কেন করবেন এবং ইমেইল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা

বর্তমানে মার্কেটিং এর বিভিন্ন উপায় রয়েছে। তবে অনলাইন মার্কেটিং এর সবচেয়ে শক্তিশালী যে পথটি হল সেটি হল সাধারণত ইমেইল মার্কেটিং। ইমেইল মার্কেটিং হল অনলাইন মার্কেটিং এর একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং কার্যকারী টেকনিক। আর সাধারণত ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনি অতি তাড়াতাড়ি আপনার গ্রাহকের কাছে আপনার পণ্য বা তথ্য  পৌঁছাতে পারবেন। তবে সেটা অবশ্যই টাগের্ট অডিয়েন্স হতে হবে। মনে করুন . আমি গাড়ির যন্ত্রাংশ ক্রয় বা তার সম্পর্কে জানতে ইচ্ছুক না। আপনি যদি আমাকে গাড়ির ক্রয় সংক্রান্ত কোন মেইল করেন তাহলে নিশ্চিত আমি সেটা সম্পর্কে জানতে কিনতে ওতো আগ্রহ দেখাবো না। তাই এর জন্য টাগের্ট অডিয়েন্স খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

কথায় আছে ‘প্রচারেই প্রসার’।  পণ্যের যত প্রচার হবে সে পণ্য ততো বেশি বিক্রি হবে। আপনি যদি পণ্য  বেশি মানুষের কাছে তুলে ধরবেন আর সেটা তত বেশি মানুষের কাছে পৌছাবে। 

সাধারণত ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে ব্যবসার প্রসার করার সাথে সাথে গ্রাহকদের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি করা যায়। আর এজন্য বিভিন্ন বড় বড় প্রতিষ্ঠান বর্তমানে ইমেইল মার্কেটিংয়ের দিকে ঝুঁকে পড়েছেন। আপনি ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনার ব্যবসার পরিধি খুবই দ্রুত বাড়াতে পারবেন এবং আপনার পছন্দের কাস্টমারের কাছে আপনি খুবই সহজে পৌঁছাতে পারবেন। 

ইমেইল মার্কেটিং কি বা কাকে বলে? 

সহজ কথায়,ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকে কাহজে লাগিয়ে মাকের্টিং কার্যকম পরিচালনাই হচ্ছে ইমেইল মাকের্টিং। ইমেইল মার্কেটিং হচ্ছে অনলাইনে ব্যবসার পরিধি বাড়ানোর জন্য সবচেয়ে কার্যকরী একটি উপায়। যা ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটা অংশ । 



কেন ইমেইল মার্কেটিং করবেন? এবং ইমেইল মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?

সাধারণত ইমেইল মার্কেটিং করার অনেকগুলো কারণ রয়েছে। আর বিশেষ করে এই ডিজিটাল যুগে যদি ব্যবসার পরিধি বাড়াতে হয় তাহলে অবশ্যই ইমেইল মার্কেটিং একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। নিচে সংক্ষিপ্ত আকারে কিছু প্রধান কারণ উল্লেখ করা হল : 

  • পণ্য বা প্রোডাক্টের বিক্রয় বাড়াতে 
  • গ্রাহকের সাথে ভালো সম্পর্ক সৃষ্টি করার ক্ষেত্রে 
  • গ্রাহকের সংখ্যা বৃদ্ধি করতে 
  • গ্রাহককে সবসময় আপডেট দিয়ে গ্রাহক ধরে রাখতে 
  • গ্রাহকের মধ্যে পজিটিভ ধারণা তৈরি করতে 

ইমেইল মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করবেন?

করোনাভাইরাস এর সময়ে লকডাউনে এই অনলাইন প্রতিষ্ঠানগুলো হাজার হাজার টাকা ইনকাম করে ফেলেছে। আর তাছাড়া সাধারণত ফ্রিল্যান্সারদের সংখ্যাও ব্যাপক হারে বেড়ে গিয়েছে। আর এই সময়ে ইমেইল মার্কেটিং থেকে আয়ের পরিমাণটা অনেক বেশি বেড়ে গিয়েছে।আর সেই জন্য সাধারণত 2020 সালকে ইমেইল মার্কেটিং থেকে আয়ের সেরা বছর হিসাবে বলা যেতে পারে।  ইমেইল মার্কেটিং থেকে আয় করার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য পদ্ধতি গুলো হলোঃ

  •  ইমেইলের রেস্পন্সিভ   ইউজার ফ্রেন্ডলি টেমপ্লেট ডিজাইন করে 
  • এইচটিএমএল এবং সিএসএস দিয়ে ইমেইল টেমপ্লেট তৈরি ।
  • ইমেইলে কনটেন্ট লিখে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে তা বিক্রি করা ।
  • ইমেইল ক্যাম্পেইন করে

তবে আপনাকে যদি ইমেইল মার্কেটিং করে আয় শুরু করতে হয় তাহলে আপনাকে সে ক্ষেত্রে কোন প্রতিষ্ঠান বা অনলাইন প্লাটফর্ম ইউটিউব এর মাধ্যমে আপনাকে এই বিষয় সর্ম্পকে ভালো দক্ষতা অর্জন করতে হবে।

 

ইমেইল মার্কেটিং নিয়ে টিপস ও ট্রিকস 

আপনাকে যদি ইমেইল মার্কেটিং করতে হয় তাহলে আপনাকে কিছু কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ভালোভাবে মাথায় রাখতে হবে। 

  • ইমেইল এর ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে সাবজেক্ট লাইন । একজন ক্রেতা কিন্তু আপনার সাবজেক্ট লাইনটি দেখেই ইমেইলটি ওপেন করবে কি, করবে না সেটা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। তাই ইমেইল এর সাবজেক্ট লাইন দেয়ার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এবং এমন ভাবে লিখতে হবে যেন ইমেইল মেলা দেখতে বাধ্য হবে।
  • যাকে-তাকে আপনাকে ইমেল দেয়া থেকে বিরত রাখতে হবে। নির্দিষ্ট গ্রাহক টার্গেট করতে হবে এবং তাদের সাথে যোগাযোগ করে তাদেরকে ইমেইল দিতে হবে। আর আপনি যত বেশি  ইমেইল আকর্ষণীয় ডিজাইন করে করতে পারবেন তত বেশি গ্রাহক আপনার ই-মেইলের প্রতি আকৃষ্ট হবে।
  • ইয়েসওয়্যারের এক পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে যে , পরিসংখ্যান ও সংখ্যার ব্যবহারে ক্রেতাকে দ্রুত রিপ্লাই করতে ও ক্রেতার সংখ্যা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে । যেমন ধরুন কোন একটি ক্যাম্পেইনের শিরোনামে আপনি  “সেভ মানি” না লিখে যদি  “20% অফ ইউর মানি” লিখে ক্যাম্পেইন চালু করেন।  তাহলে স্বাভাবিকভাবেই ওই “সেভ মানি” শিরোনামে ক্যাম্পেইনের চেয়ে  “20% অফ ইউর মানি” ক্যাম্পেইনটােই বেশি সংখ্যক ক্রেতাকে আর্কষণ করবে। 
  • ক্যাম্পেইন মনিটরের একটি পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে,  50% ইমেল মানুষ মোবাইলেই ওপেন করে । তাই ইমেইল গুলো এমন ভাবে অপটিমাইজ করে লিখতে হবে যেন সেটা মোবাইল ফ্রেন্ডলি হয়। এছাড়াও ক্যাম্পেইন মনিটরের আর একটি পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে যে কম্পিউটার ব্যবহারকারী তুলনায় মোবাইল ব্যবহারকারীরা তিনগুণ বেশি ইমেইল  ওপেন করে ।তাহলে বুঝতেই পারছেন ইমেল মার্কেটিং ক্ষেত্রে মোবাইল অপটিমাইজ ইমেইল কতটা গুরুত্বপূর্ণ ।


  • ক্লিক টু একশন বাটন যুক্ত করুন এতে করে গ্রাহকরা সহজেই আপনি যে জিনিসটা বিক্রয় করতে বাজে সাইটের ভিজিটর পাচ্ছেন তারা সহজেই যেতে পারবে যদি আগ্রহী হয়ে থাকে।
  • কিউরিওসিটি টাইপের সাবজেক্ট লাইন দেয়ার চেষ্টা করুন। কিউরিওসিটি বলতে শুধুমাত্র কিছু ইঙ্গিত দিয়ে একটা আগ্রহ তৈরি করা টাইপের সাবজেক্ট এর কথা বলা হয়েছে। কফিহ্যাকারসের মতে,  কিউরিওসিটি  গ্যাপের কারণে  927 শতাংশ ক্রেতা যেকোনো ধরনের পেজ এ ক্লিক করতে বাধ্য হয়ে থাকে।
  • শিরোনামে পারলে ইমোজির ব্যবহার করুন । শুনতে অবাক লাগলেও এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে ইমেইল খোলার ক্ষেত্রে যেসব ব্র্যান্ড ইমোজি গুলো ব্যবহার করছে তাদের ইমেইল ওপেনিং ডেট কমপক্ষে 56 শতাংশ হচ্ছে।
  • ইমেইল কে যথাসম্ভব সংক্ষিপ্ত আকারে লেখার চেষ্টা করুন। কারণ অপরিচিত কারো কাছ থেকে মেইল পেলে নিশ্চয়ই কেউ প্রবন্ধ টাইপের কিছু পড়তে চাইবে না তাই যথা সম্ভব চেষ্টা করবেন সংক্ষিপ্ত আকারে রাখতে এবং সংক্ষিপ্ত আকারের ভিতরেই আপনার মেসেজটি গ্রাহককে দিয়ে দিতে ।
  • মেইলের কন্টেনের শেষে আপনি পারলে রিলেটেড কিছু আর্টিকেল অথবা ব্লগ বা প্রোডাক্ট যুক্ত করে দেবেন ।
  •   ইমেইলের ভিতরে সাবস্ক্রাইব অথবা আনসাবস্ক্রাইব অথবা সাইন ইন বা সাইন আপ এর অপশন গুলো যুক্ত করুন । এতে করে কোন গ্রাহক যদি আপনার সাইটে সাবস্ক্রাইব করে রাখতে চাই অথবা সাইন ইন করতে চায় তাহলে সে সহজেই করতে পারবে ।
  • আপনি একটা বিষয় সবসময় খেয়াল রাখবেন কোন সময় যেন স্পামিং না হয়। অপ্রয়োজনে আপনি কাউকে মেইল পাঠাবেন না শুধুমাত্র যেসব গ্রাহক আপনাদের পণ্য বা সেবা নিতে আগ্রহী আপনি তাদেরকে মেইল পাঠাবেন।আর আপনি এই ক্ষেত্রে ইমেইল যত আকর্ষণীয় ডিজাইন করতে করতে পারবেন তত বেশি কাস্টমার আকৃষ্ট হবে। 
  • আপনি যদি ভেবে নিয়ে থাকেন যে মার্কেটিংয়ের জন্য আপনি ইমেইল মার্কেটিং করবেন তাহলে আপনার টার্গেট করা কাস্টমার গুলোকে আপনি নিয়মিত ইমেইল পাঠাতে থাকুন। নিয়মিত নতুন নতুন আপডেট এবং পণ্য সম্পর্কে গ্রাহকদের অবহিত করলে ব্যবসার পরিধি বাড়ানো যায়। 
  • ইমেইল মার্কেটিং এমন একটি বিষয় এটি শুধু আয় ব্যয়ের সাথে সম্পর্কযুক্ত নয় এটার মাধ্যমে আপনি গ্রাহকদের সাথে ভাল সম্পর্ক গড়েও তুলতে পারবেন। যা আপনার ব্যবসার ভবিষ্যৎকে আরো উন্নতি করবে।

বিশেষ কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস এন্ড ট্রিকস 

  • আপনার ইমেইল গুলো গ্রাহকরা কখন ওপেন করছে কি বার ওপেন করছে কোন সময় ওপেন করছে ইত্যাদি নিয়ে বিশদ তথ্য রাখুন এতে করে আপনি পরবর্তী ক্যাম্পেইনে কিছুটা  অ্যাডভান্টেজ পাবেন।
  • আপনার ইমেইল গুলো কারা পড়ছে , কোন ধরণের মানুষরা পড়ছে সে বিষয়ে একটি লিস্ট তৈরি করুন।
  • গ্রাহককে সহজেই আপনার সাইটে বা পণ্য সম্পর্কে আকৃষ্ট করতে সাইটের ফুটারে সাইন আপ, সাইন আপ  অপশন যুক্ত রাখুন।
  • ভালো ফলাফল পেতে চাইলে অবশ্যই মোবাইল রেস্পন্সিভ  ডিজাইন এ ইমেইল লিখুন ।

পরিশেষে, আজকের আর্টিকেল আপনাদের ইমেইল মার্কেটিং সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ধারনা দিতে চেয়েছি।আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন এবং ইমেইল মার্কেটিং নিয়ে যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাও আপনারা করতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button