Freelancingকোর্সটেন মিনিট স্কুলডিজিটাল মার্কেটিংস্কিল ডেভেলপমেন্ট

ফেসবুক মার্কেটিং কি? কিভাবে আপনি ‍নিজেকে একজন ফেসবুক মার্কেটিং এ এক্সপার্ট হিসেবে গড়ে তুলবেন ?

Table of Contents

ফেসবুক মার্কেটিং কি? কিভাবে আপনি ‍নিজেকে একজন ফেসবুক মার্কেটিং এ এক্সপার্ট হিসেবে গড়ে তুলবেন ?

বর্তমান সময় হচ্ছে প্রযুক্তির যুগ আর বিশেষ করে এই মহামারিতে এই প্রযুক্তির ব্যবহার কয়েকগুন বেড়ে গিয়েছে। তাই মানুষ ব্যবসা বানিজ্যতে আরো প্রসারিত করতে ঝুকছে ডিজিটাল মাকের্টিং দিকে। আর ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটা অংশ হচ্ছে সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। আর আমাদের দেশের প্রক্ষাপটে সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত স্যোসাল মিডিয়া মধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। আমরা দিনের অনেকটা সময় মানুষ ব্যয় করে ফেসবুকে। আর এই ফেসবুক ঘিরেই এখন অনেক মানুষ প্রসারিত করছে নিজেদের ব্যবসা। ফেসবুক মার্কেটিং এর মাধ্যমে সারাদেশের ৪ কোটি ফেসবুক ইউজারের কাছে আপনি পৌঁছে যেতে পারেন আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে। 10 minutes school facebook marketing course

ফেসবুক মার্কেটিং কি?

ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে বলার আগে আমরা আগে জেনে নেই মার্কেটিং টা আসলে কি ? সহজ কথায় বলতে গেলে  মার্কেটিং মানে হচ্ছে কোনো কিছু প্রচার করা যার মাধ্যমে সেই সেবা বা পণ্য সম্পর্কে জানতে পারে। আপনি কোন সে বাবা প্রোডাক্ট তৈরি করলে সেটা কিন্তু কোন মানুষ কিনবে না যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনি মানুষকে সে প্রডাক্ট বা সেবা সম্পর্কে জানাচ্ছেন এ মানুষকে সে প্রোডাক্ট সেবা সম্পর্কে জানানোর প্রক্রিয়াটাই হচ্ছে মূলত মার্কেটিং । আর ফেসবুক হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর একটি অংশ ।  আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গুলো আছে মানুষজন ফেসবুকে বেশি একটিভ থাকেন  যা সংখ্যা প্রায় 4 কোটি !  অর্থাৎ মোট জনসংখ্যার প্রায় 28 শতাংশ !  তাই ফেসবুক মার্কেট এর মাধ্যমে নিজেকে  নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে  গ্রো  করা তুলনামূলক সহজ হয় । 

কেন ফেসবুক মার্কেটিং করবেন ?

 আগেই বলেছি বর্তমান সময় হচ্ছে গিয়ে প্রযুক্তির যুগ । আর করোনার কারণে এ ব্যবহার আরো কয়েকগুণ বেড়ে গিয়েছে ।  তাই ফলস্বরূপ মানুষ তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে প্রমোশনের জন্য  ব্যানার পোস্টার  তথা প্রিন্ট মিডিয়ার পাশাপাশি  ডিজিটাল  মার্কেটিং এর দিকে এগোচ্ছে ।  ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেকগুলো শাখা রয়েছে তার মধ্যে একটি হচ্ছে গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং আর যার মাধ্যমে সহজেই ক্রেতাদের কাছে পৌঁছানো যায় ।  সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর  একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক ।  আপনি ফেসবুক ব্যবহার করে খুব সহজেই আপনি  আপনার  নির্ধারিত অডিয়েন্স কাছে পৌঁছাতে পারবেন ।  যেমন ধরুন :  আপনি ঘড়ি বিক্রি করতে চাচ্ছেন ।  এখন ফেসবুক ব্যবহারের মধ্যে তো সবাই ঘড়ি  পছন্দ করবে এমনটা তো নয় ।  কেউ হয়তো ঘড়ি পছন্দ করবে আর কেউ এতো পছন্দ করবে না ।  এখন আপনি ফেসবুকের মাধ্যমে চাইলেই যারা ঘড়ি পছন্দ করে তাদের কাছে আপনার ঘড়ির  বিজ্ঞাপনটি দেখাতে পারেন। তবে শুধুমাত্র ফেসবুক হইতে  নির্ধারিত অডিয়েন্স সেট করা যাবে এমনটা নয় আপনি চাইলে অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গুলো তো নির্ধারিত অডিয়েন্সের কাছে পৌছাতে পারবেন তবে আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া তুলনায় ফেসবুকে চাহিদা বেশি। 

ফেসবুক মার্কেটিং করার নিয়ম

আচ্ছা ফেসবুক মার্কেটিং করার নিয়ম সম্পর্কে জানার আগে আজ আমরা জেনে নেই ফেসবুক আমাদের থেকে কিভাবে বেনিফিটেড হচ্ছে । একটু ভাবুন তো আপনি ফ্রিতে ফেসবুক একাউন্ট খুলছেন  তাতে ফেসবুকে কি লাভ হচ্ছে ?  এ প্রশ্নের উত্তর যদি সহজ করে বলি ,  আপনাকে অ্যাড দেখিয়ে তারা মূলত লাভবান হচ্ছে ।  ফেসবুকে মূলত আমরা যখন একাউন্ট খুলে তখন আমরা আমাদের বিভিন্ন ইনফরমেশন দিয়ে থাকি । এই ইনফরমেশন বা ডাটাকে কাজে লাগিয়ে আমাদের কাজ পর্যন্ত একটি বিজ্ঞাপনকে পৌঁছায় । মনে করুন, আপনি ঘড়ি লিখে ফেসবুকে সার্চ করলেন  এরপর দেখবেন কিছুক্ষণ বা কিছু দিনের মধ্যেই  আপনি বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখতে পারবেন ।যে পেজ থেকে বিজ্ঞাপন এসেছে তা ঠিক নিচেই লিখা থাকবে স্পন্সর । যাইহোক এসব  অ্যাড বা বিজ্ঞাপন দেখিয়েই ফেসবুক মূলত  লাভবান হচ্ছে । আচ্ছা এবার ফেসবুক মার্কেটিং করার নিয়ম আসা যাক ।  আপনি ফেসবুক বিভিন্নভাবে করতে পারেন আমরা নিচে ফেসবুক মার্কেটিং এর প্রকারভেদ সম্পর্কে আলোচনা করেছি সেখানে আমরা বিস্তারিত  বলবো। 

ফেসবুক মার্কেটিং  কত প্রকার ?

  এতক্ষণ পর্যন্ত আমরা মার্কেটিং এবং ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে জানলাম ।  এবার জানব ফেসবুক মার্কেটিং এর প্রকারভেদ সম্পর্কে ।  ফেসবুক মার্কেটিং মূলত দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। একটা হচ্ছে ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং আর অন্যটি হচ্ছে পেইড ফেসবুক মার্কেটিং ।  ফেসবুক মার্কেটিং  এর প্রকারভেদ সম্পর্কে বিস্তারিত  জানা যাক । 

ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং  কি ? 

সহজ কথায় যে মার্কেটিং করতে কোন ব্যয় করতে হয় না সেটা হচ্ছে মূলত ফ্রি মার্কেটিং আর সেটা ফেসবুক করা যায় ।  ফেসবুকে ব্যবসা-বাণিজ্য প্রয়োজনে করার জন্য আপনার প্রথম শর্ত হচ্ছে কি আপনার একটা পেজ থাকতে হবে ।  এছাড়াও আপনি প্রোফাইল এর মাধ্যমে করতে পারেন । তবে সবচেয়ে এফেক্টিভ হচ্ছে ফেসবুক পেজ খুলে আপনার নিজের ব্র্যান্ডিং টা করা ।  প্রোফাইল দিয়ে করলে হয়তো আপনি নির্দিষ্ট কিছু অডিয়েন্সের কাছে যেতে পারবেন । কিন্তু যখন আপনি  ফেসবুক পেইজ করবেন তখন আপনি আনলিমিটেড অডিয়েন্স এর কাছে যেতে পারবেন ।  এবং পরবর্তীতে যখন আপনি পেইড মার্কেটিং করতে যাবেন তখন এই পেইজটি আপনাকে কাজে দিবে ।

মনে করুন, আপনি একটি বিজনেস ফেসবুক পেইজ  খুললেন এবং সেখানে আপনি আপনার প্রোফাইল থেকে আপনার শুভাকাঙ্ক্ষী বা আশেপাশের মানুষকে ইনভাইট করলেন ।  এবং  আপনি আপনার বিজনেস ফেসবুক পেইজে আপনার সেবা বা প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিভিন্ন প্রকার পোস্ট  শেয়ার করলেন ।  এর মাধ্যমে যারা আপনার প্রোডাক্ট বা সেবা সম্পর্কে আগ্রহী   তারা সহজে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবে ।  এছাড়া রয়েছে ফেসবুক গ্রুপ ।  আপনি চাইলে আপনার প্রোডাক্ট  প্রোডাক্টটি সম্পর্কে বিস্তারিত লিখে সেটা পোস্ট আকারে হোক বা ছবি আকারে হোক সেটা বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার করে আপনি আপনার প্রোডাক্ট বা সেবার প্রসার ঘটাতে পারবেন ।  বর্তমান আমাদের দেশে বিভিন্ন রকম গ্রুপ রয়েছে যার মাধ্যমে অনেকেই অনায়াসেই মাসের  লাখের উপরে অর্থ উপার্জন  করছে । 

পেইড  ফেসবুক মার্কেটিং কি ? 

এতক্ষণ পর্যন্ত আমরা জানলাম কেউবা আপনি ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারেন ।  তবে আপনি এফেক্টিভ  নির্ধারিত অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছাতে হলে  অথবা আপনার সেল বৃদ্ধি করতে হলে ফেসবুক  পেইড মার্কেটিং আবশ্যক ।  অর্থাৎ নির্দিষ্ট অর্থের  বিনিময় ফেসবুক মার্কেটিং করার  প্রক্রিয়াকে বলা হয় পেইড  ফেসবুক মার্কেটিং। 

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এর মাধ্যমে  আপনি সহজেই আপনার নির্ধারিত অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছাতে পারবেন ।  এবং সেখানে আপনার চাহিদামত নির্দিষ্ট করে দিতে পারবেন এবং কতদিন পর্যন্ত আপনার অ্যাড চলবে কতজন মানুষের কাছ পর্যন্ত পৌঁছাবে এবং সব ধর্মের তথ্য পেয়ে যাবেন । 

যেমন ধরুন আপনি একই টি শার্ট বিক্রি করতে চাচ্ছেন ।  এবং টি-শার্টটি যাদের কাছে বিক্রি করতে চাচ্ছেন তাদের জন্ম সাল হতে হবে হচ্ছে গিয়ে 2000 সাল ।  আপনি চাইলে ফেসবুক পেইড  মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে সেই নির্ধারিত অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছাতে পারবেন ।  কারণ আমরা আগেই বলেছি ফেসবুকের কাছে আমাদের সমস্ত ঢাকায় রয়েছে আমরা কবে জন্মগ্রহণ করেছি কোন কোন বিষয়ের প্রতি আমরা ইন্টারেস্ট কোন মাসে জন্মগ্রহণ করেছি  আমাদের এরিয়া কোথায়  ইত্যাদি ইত্যাদি । 

90% ছাড়ে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

কোথা থেকে ফেসবুক মার্কেটিং শিখব ?

 আমরা আপনাদেরকে আজকে ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে একটি বেসিক ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি ।  আপনি ফেসবুক মার্কেটিং শিখতে চাইলে ইউটিউবে সহায়তা নিতে পারেন ।  তবে সবচেয়ে বেটার হয় আপনি যদি কোন একটি কোর্স করে কাজটি শিখেন ।  কারন ফেসবুক মার্কেটিং আদতে বলতে লাগলো ব্যাপারটা আসলে অতটা সহজ নয়।  আপনাকে ফেসবুক মার্কেটিং সঠিকভাবে করতে হলে ফেসবুকে বিভিন্ন পলিসি ফেসবুকের বিভিন্ন অ্যাড  নীতি,  কখন  অ্যাড করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে,  কিভাবে সেট করতে হবে,  কিভাবে  নির্ধারিত অডিয়েন্স পর্যন্ত পৌঁছানো যাবে  এবং ইত্যাদি নানা বিষয় জানতে হবে । তাই এসব সব বিষয়ে জানতে হলে  আমি মনে করি আপনার যে কোন একটি ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স শেখা উচিত । 

টেন মিনিট স্কুলের ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স বাই আয়মান সাদিক ও সাদমান সাদিক  

 

বর্তমানে আয়মান সাদিক ও সাদমান সাদিক এর ফেসবুক মার্কেটিং কোর্সটিতে চলছে 90 শতাংশ পর্যন্ত ছাড় ! যেখানে ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে  বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে ।  বিগেনার থেকে শুরু করে একেবারে এডভান্স পর্যন্ত আলোচনা করা হয়েছে। 

90% ছাড়ে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্সটি থেকে কী শিখবো?

  • একদম গোড়া থেকে শুরু করেও কীভাবে ফেসবুকে একটি পাওয়ারফুল ব্র‍্যান্ড তৈরি করা যায় তার উপায়।
  • বিভিন্ন প্রাসঙ্গিক এবং প্রমাণিত সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং স্ট্র‍্যাটেজি যা আপনার অনলাইন উপস্থিতি আরও শক্ত করে তুলবে। 
  • কাস্টমারদের আরও আকর্ষন করার জন্য কীভাবে সোশ্যাল মিডিয়া কনটেন্ট প্ল্যান করা যায়। 
  • ফেসবুকে আরও বেশি ফলোয়ার, রিচ এবং এংগেইজমেন্ট বাড়ানোর জন্য কীভাবে আপনার কনটেন্ট প্রমোট করবেন তার প্রমাণিত স্ট্র‍্যাটেজি।
  • কীভাবে এমন কনটেন্ট তৈরি করা যায় যার জন্য সবাই আপনার ব্যান্ডটি  নিয়ে কথা বলবে।
  • কীভাবে নতুন নতুন মানুষের কাছে পৌঁছানো যায় এবং তাদেরকে আপনার ব্র্যান্ড এর সাথে যুক্ত করা যায়। 
  • ফেসবুক পোস্ট বুস্ট করার উপায়।
  • ফেসবুক অ্যাড ম্যানেজার-এর মাধ্যমে অ্যাড তৈরি করা এবং এর স্ট্র‍্যাটেজি। 
  •  অনলাইন শিক্ষকতা, পোশাকের ব্র্যান্ড, ক্রিয়েটিভ কাজের প্রচার, স্টাইলিশ ব্র্যান্ডিং-সহ আরও অনেক ক্ষেত্রে ফেসবুক মার্কেটিং-এর টিপস ও ট্রিকস। 

কোর্স টি বর্তমানে প্রায় 2600 জনেরও অধিক মানুষ ক্রয় করেছে ।  এবং  ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স টি প্রায় 35 ঘণ্টাব্যাপী ।  এছাড়াও রয়েছে 34 টি ভিডিও 34 টি কুইজ এবং 34 টি নোট । 

ফেসবুক মাকের্টিং কোর্স

 

 আশা করছি একজন ফেসবুক মার্কেটিং হিসেবে আপনাকে যদি নিজেকে গড়ে তুলতে চান তাহলে করছে আপনার জন্য আবশ্যক। আর আপনার এই ফেসবুক মার্কেটিং-এর কাজটি সফলভাবে করার জন্য যা যা জানা প্রয়োজন সবকিছু নিয়ে টেন মিনিট স্কুল চলে এসেছে ‘ফেসবুক মার্কেটিং’ কোর্স নিয়ে।  90 শতাংশ ছাড় পেতে দেরি না করে আজই এনরোল করুন কোর্স ! 

facebook marketing course by 10 minutes schools

90% ছাড়ে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

এছাড়াও যেকোনো ধরণের প্রশ্ন থাকলে আমাদের বলতে পারেন।  আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন ফেসবুক পেইজ ও গ্রুপের মাধ্যমে । আপনাদের যেকোন বই লাগলে আমাদের অবশ্যই জানাবেন। আমরা যথাসাধ্য দেয়ার চেষ্টা করবো।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button